* শিক্ষা * শান্তি * প্রগতি

* জয় বাংলা * জয় বঙ্গবন্ধু

শিরোনাম:

শিক্ষার্থীদের ক্লাসে ফিরে যাওয়ার আহ্বান ছাত্রলীগ সভাপতি শোভনের গাইবান্ধায় বন্যার্তদের মাঝে ছাত্রলীগের ত্রাণ বিতরণ ছাত্রলীগের উদ্যোগে মধুর ক্যান্টিনে বিনামূল্যে স্যালাইন বিতরণ শুরু চকরিয়ায় বন্যার্তদের মাঝে ছাত্রলীগের ত্রাণ বিতরণ ট্রাম্পের কাছে প্রিয়া সাহা ভয়ঙ্কর মিথ্যা অভিযোগ করেছেন: জয় লন্ডনে আয়োজিত বাংলাদেশি রাষ্ট্রদূতদের সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বন্যা কবলিত এলাকায় ত্রাণ বিতরণে আওয়ামী লীগের ছয় টিম আমরা সেই ছাত্রলীগ চাই, যেন বাবা-মা তার সন্তানকে নিয়ে গর্ব করে: গোলাম রাব্বানী সম্মেলনে জরুরী চিকিৎসা সেবা প্রদানে ‘মেডিকেল টিম’ রাখার নির্দেশ কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের জবি ছাত্রলীগ কর্মী ওয়াসিরের অকাল মৃত্যুতে ছাত্রলীগ পরিবার গভীর শোকাহত প্রিয়া সাহার অভিযোগের তথ্য ভিত্তিহীন জানালেন মার্কিন রাষ্ট্রদূত রবার্ট মিলার শুভ সূচনা করলো হাজী মুহম্মদ মুহসীন হল শিল্পকর্ম প্রদর্শনী-২০১৯ বাংলাদেশের বাঁকে বাঁকে ছাত্রলীগ অবদান রেখেছে : শোভন পঞ্চগড় জেলা শাখার সম্মেলন ঠাকুরগাঁও জেলা শাখার সম্মেলন বাংলাদেশ ছাত্রলীগ, ঝিনাইদহ জেলা শাখার পূর্নাঙ্গ কমিটির সবাইকে অভিনন্দন।। প্রেস বিজ্ঞপ্তি অপারেশন হতে যাচ্ছে মুহসিন হলের প্রিয় রহিম মামার বাঁশিতে ফু দিয়ে বেনাপোল ও বনলতা এক্সপ্রেস ট্রেনের উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী

বাজেটকে স্বাগত জানিয়ে ছাত্রলীগের আনন্দ মিছিল

১৩ জুন, ২০১৯, ৯:৫১ প্রিন্ট

সম্ভাবনা ও সমৃদ্ধির বাজেট ২০১৯-২০ কে স্বাগত জানিয়ে মিছিল করেছে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ। বৃহস্পতিবার বিকালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মধুর কেন্টিন থেকে এ মিছিল বের হয়ে অপরাজেয় বাংলায় সমাবেশে মিলিত হয়।

মিছিলে নেতৃত্ব দেন ছাত্রলীগের সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন ও সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী। এতে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের পাশাপাশি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণের নেতাকর্মীরা অংশ নেন।

সভাপতির বক্তব্যে ছাত্রলীগের সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন বলেন, ‘এ বাজেট দেশের ইতিহাসের সবচেয়ে বড় বাজেট। শিক্ষা বান্ধব, প্রযুক্তি বান্ধব ও কৃষি বান্ধব। এই বাজেটে বলা হয়েছে, সময় এখন আমাদের। সময় এখন প্রত্যেকটি তরুণের। শিক্ষাখাতে সবচেয়ে বেশি বরাদ্দ রেখেছে। তাই, আমরা তরুণ প্রজন্ম দেশরত্ন শেখ হাসিনা ও তার সরকারের উপস্থাপিত বাজেটকে সাধুবাদ জানাই।’

ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী বলেন, ‘বাংলাদেশের মানুষের ভাগ্যোন্নয়নের জন্য একের এক উন্নয়নমুখী বাজেট দিয়ে আসছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকার। তারই ধারাবাহিকতায় এবার সবচেয়ে বড় বাজেট দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। জনবান্ধব, শিক্ষা ও কৃষিবান্ধব এ বাজেটকে আমরা স্বাগত জানাই। তার বাজেট বাস্তবায়নে শেখ হাসিনার বিশ্বস্ত ভ্যানগার্ড হিসেবে ছাত্রলীগ পাশে থাকবে।’

এরআগে বিকাল ৩টায় কোরআন তেলাওয়াতের মধ্য দিয়ে স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে সংসদের বৈঠক শুরু হয়। এরপর স্পিকার অর্থমন্ত্রীকে বাজেট উপস্থাপনের জন্য আহ্বান জানান। এরপর তিনি অনুমতি নিয়ে বেলা ৩টা ৭ মিনিটে বাজেট বক্তৃতা শুরু করেন অর্থমন্ত্রী।

শুরুতে প্রামাণ্য চিত্র দেখিয়ে মূল মূল বক্তব্য শুরু করেন তিনি। অসুস্থতাজনিত কারণে মাঝে মধ্যে বসে বাজেট পাঠ করার অনুমতি নেন স্পিকারের কাছে। পরে কিছুক্ষণ বাজেট বক্তৃতা করে তিনি ওষুধ চান। এবং ওষুধ গ্রহণের জন্য ৫ মিনিট সময় চান। এরপর আবার বাজেট বক্তৃতা শুরু করতে চাইলেও অসুস্থতা জনিত কারণে পারেননি।

এসময় প্রধানমন্ত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সংসদে ফ্লোর নিয়ে দাঁড়িয়ে বলেন, আমার ও আমার অর্থমন্ত্রী দুজনেই চোখের অপারেশন হয়েছে। মন্ত্রীকে ১৫ মিনিট পর পর ড্রপ নিতে হয়। যার কারণে তার পড়তে অসুবিধে হচ্ছে। আমারও পড়তে সমস্যা হয়। তারপরও যতটুকু পারি আমি বাজেট পড়ে দিচ্ছি। এরপর প্রধানমন্ত্রী অর্থমন্ত্রীর বক্তৃতার পর থেকে পড়া শুরু করেন।

পাঠকের মতামত:

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে