* শিক্ষা * শান্তি * প্রগতি

* জয় বাংলা * জয় বঙ্গবন্ধু

শিরোনাম:

প্রতিবন্ধীদের বাদ দিয়ে উন্নয়ন কল্পনা করা যায় না: ছাত্রলীগ সভাপতি বিদ্যুৎ উৎপাদনে রেকর্ড ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ রুটে বিআরটিসির এসি বাস সার্ভিস চালু কৃষকদের সঙ্গে ধান কাটলেন ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদক কৃষকদের পাশে দাঁড়ালো বাংলাদেশ ছাত্রলীগ শান্তি ছাড়া উন্নতি সম্ভব নয়: প্রধানমন্ত্রী অনিয়মিত অভিবাসনকে আমরা কখনও উৎসাহ দেই না: পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী কৃষির যান্ত্রিকীকরণে ৩ হাজার কোটি টাকা ব্যয় করা হবে : কৃষিমন্ত্রী বিশ্বব্যাপী কোরআন প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের সংবর্ধনা জানাবে ছাত্রলীগ: গোলাম রাব্বানী ঈদে দৌলতদিয়া-পাটুরিয়ায় চলবে ২০টি ফেরি ও ২২টি লঞ্চ বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকীতে দেশে-বিদেশে সভা-সেমিনার, কর্মশালার সিদ্ধান্ত ২ লাখ ২৭২১ কোটি টাকার এডিপি অনুমোদন মধুর ক্যান্টিনে সংগঠিত অনাকাঙ্খিত এবং অপ্রীতিকর ঘটনা তদন্তের নিমিত্তে প্রেস বিজ্ঞপ্তি বাংলাদেশ ছাত্রলীগের অন্তর্গত সকল ইউনিটের উদ্দেশ্যে প্রেস বিজ্ঞপ্তি বগুড়া-৬ আসনে আ. লীগের প্রার্থী জামান নিকিতা বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইটের সেবা নিচ্ছে দুটি ব্যাংক বাংলাদেশে সবাই সম্মানের সঙ্গে নিজ ধর্ম পালন করবে: প্রধানমন্ত্রী অতীতের চেয়ে স্বস্তিদায়ক হবে এবারের ঈদ যাত্রা মন্ত্রিপরিষদে পুনর্বিন্যাস করে প্রজ্ঞাপন জারি সবাই মিলে দেশটাকে সুন্দর করে গড়ে তুলতে হবে: প্রধানমন্ত্রী

অদম্য তরুণ প্রতিবন্ধী ফজলুর পাশে দাঁড়াবে ছাত্রলীগ: গোলাম রাব্বানী

৮ মে, ২০১৯, ৯:৩২ প্রিন্ট

সম্প্রতি এসএসসি পরীক্ষার ফলপ্রকাশের পর সংবাদ মাধ্যমে এক অদম্য তরুনের ‘এক পায়ে ফজলুর এসএসসি জয়’ শিরোনামে সংবাদ ছাপা হয়। উক্ত সংবাদটি বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক, ডাকসুর জিএস গোলাম রাব্বানীর দৃষ্টিগোচর হলে তিনি সিরাজগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের দৃষ্টি আকর্ষণ করে ফজলুর সম্পর্ক খোঁজ খবর নিতে বলেন।

বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী ছাত্রলীগের পরিবারের পক্ষ থেকে বলেন, “অদম্য তরুণ, শারীরিক প্রতিবন্ধী ফজলুর রহমান আর তার ছোট বোন আসমার পাশে দাঁড়াতে চাই। তাদের লেখাপড়া চালিয়ে যেতে ছাত্রলীগের পক্ষ থেকে সার্বিক সহযোগিতা করা হবে।”

উল্লেখ্য, ফজলুর রহমান জন্মগতভাবে তার দুই হাত ও একটি পা নেই। এক পা দিয়েই চলেন, সেই পা দিয়ে লেখেন। এক পায়ে বাড়ি থেকে প্রায় ৩ কিলোমিটার রাস্তা হেঁটে স্কুলে গিয়ে লেখাপড়া করেছেন তিনি। ফজলুর রহমান এ বছর মিটুয়ানী উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এসএসসি পরীক্ষা দিয়ে জিপিএ-৩.৫৬ পেয়ে পাস করেছেন। তাকে স্কুলে নিয়ে যেত তার ছোট বোন আসমা। সেও এবার এসএসসিতে জিপিএ-৩.০৬ পেয়ে পাস করেছে।

হতদরিদ্র পরিবারের এ দুই ভাই বোনের সাফল্যে গোটা গ্রামবাসী আনন্দে মেতেছে। ফজলুর প্রবল ইচ্ছা শক্তির কাছে দরিদ্রতা ও শারীরিক প্রতিবন্ধিতা আজ হার মেনেছে। তিনি পিইসিতে ২.১৭ ও জেএসসিতে ৩.৭৫ পেয়ে পাস করেন।

পাঠকের মতামত:

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে