* শিক্ষা * শান্তি * প্রগতি

* জয় বাংলা * জয় বঙ্গবন্ধু

শিরোনাম:

যেকোনো মূল্যে দলকে ঐক্যবদ্ধ রাখতে হবে : ওবায়দুল কাদের চালু হচ্ছে ‘আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা পদক জবিতে ছাত্রলীগের উদ্যোগে বৃক্ষরোপণ ‘আ’লীগের শিকড় দেশের মাটিতে প্রোথিত’ : শেখ হাসিনা আ’লীগের ৭০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে ছাত্রলীগের শ্রদ্ধা নিবেদন চোখে অপারেশন না হলে আমিও গিয়ে ধান কাটতাম: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সোনার বাংলাদেশ গড়ার প্রতিজ্ঞা আ. লীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে আওয়ামী লীগের ৭০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা ২৩ জুন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ৭০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী রেল নেটওয়ার্কে যুক্ত হবে আরও ১৫ জেলা: রেলমন্ত্রী জন্মদিন উপলক্ষে শতাধিক পথশিশুদের খাবার খাওয়ালেন ছাত্রলীগ নেতা রোহিঙ্গা পুনর্বাসনে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে সহায়তার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর আইপি ক্যামেরার আওতায় আসছে সিলেট চলতি বছর যমুনার ওপর রেল সেতু বাংলাদেশ এশিয়া প্যাসিফিক অঞ্চলের ৪৫ দেশের মধ্যে দ্রুত প্রবৃদ্ধি অর্জন করেছে সব নাগরিককে পেনশন দেয়ার উদ্যোগ ২০২০ সাল থেকে চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের প্রস্তুতি নেবে বাংলাদেশ আগামী বছরেই শতভাগ মানুষের ঘরে বিদ্যুৎ বাংলাদেশি শান্তিরক্ষীদের ভূয়সী প্রশংসা জাতিসংঘে ভবিষ্যৎ প্রজন্মের জন্য শতবর্ষব্যাপী ডেল্টা প্ল্যান নিয়ে কাজ চলছে : প্রধানমন্ত্রী

বাংলাদেশ ও ব্রুনাইয়ের মধ্যকার সম্পর্ক অত্যন্ত চমৎকার: প্রধানমন্ত্রী

২৩ এপ্রিল, ২০১৯, ১:০৬ প্রিন্ট

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, বাংলাদেশ ও ব্রুনাইয়ের মধ্যে চমৎকার সম্পর্ক বিরাজ করছে।

তিনি বলেন, ‘আমাদের দুটি দেশের মধ্যকার সম্পর্ক অত্যন্ত চমৎকার। মূল্যবোধ, ধর্ম, সাংস্কৃতিক সম্পর্ক এবং অনেক অভিন্ন বিষয়ের ভিত্তিতে এ সম্পর্ক গড়ে উঠেছে।’

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তার সম্মানে সোমবার (২২ এপিল) ব্রুনাইয়ের সরকারি বাসভবন ইসতানা নূরুল ইমানে রয়েল ব্যাঙ্কুয়েট হলে সুলতান আলহাজ হাসানাল বোলকিয়ার দেওয়া এক ভোজ সভায় এ কথা বলেন।

শেখ হাসিনা বলেন, ‘এই মহান দেশটি সফর করা তার জন্য ছিল একটি বিশাল উপহার। এ কথা সত্য, এটি একটি শান্তির আবাস ভূমি। যেখানকার প্রাকৃতিক সৌন্দর্য এবং শত শত বছরের ঐতিহ্য আধুনিকতাকেও হার মানিয়েছে।’

প্রধানমন্ত্রী ১৯৯০ দশকের গোড়ার দিকে ব্রুনাইয়ে তার সফরের কথা স্মরণ করেন। সে সময়ে তার ছোট বোন শেখ রেহানা ব্রুনাইয়ে তার পরিবারের সাথে বসবাস করতেন।

তিনি বলেন, ‘১৯৯৬ সালে ক্ষমতায় আসার পরপরই দু’দেশের মধ্যকার সম্পর্ক আরও ঘনিষ্ঠ করতে তিনি ব্রুনাইয়ে বাংলাদেশের আবাসিক মিশন পুনরায় চালু করার উদ্যোগ নেন।’ তিনি ১৯৯৯ সালে ঢাকায় আবাসিক মিশন করায় ব্রুনাইয়ের সুলতানকে ধন্যবাদ জানান।

শেখ হাসিনা বলেন, ‘তার সরকার জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়ে তুলতে বিভিন্ন কর্মসূচি বাস্তবায়ন করছে।’

তিনি বলেন, ‘ব্যাপক অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড এবং সামাজিক সেক্টরে ক্রমবর্ধমান বিনিয়োগ আমাদেরকে ২০২১ সালের মধ্যে মধ্য আয়ের দেশ এবং ২০৪১ সালের মধ্যে একটি উন্নত দেশের মর্যাদা লাভের পথে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘দুটি দেশের মধ্যে সহযোগিতা বৃদ্ধি করতে একসঙ্গে কাজ করতে উভয় দেশই সম্মত হয়েছে। আমরা সহযোগিতার বিভিন্ন ক্ষেত্র চিহ্নিত করেছি।’

শেখ হাসিনা বলেন, ‘তিনি ব্যবসায়িক ফোরামে যোগ দেওয়ার বিষয়টিতে অধিক গুরুত্ব দিচ্ছেন। দু’দেশের ব্যবসায়ী নেতারা বৈঠকে সহযোগিতার গুরুত্বপূর্ণ ক্ষেত্রগুলো চিহ্নিত করতে আলোচনা করবেন।’

প্রধানমন্ত্রী ব্রুনাইয়ের সুলতান আলহাজ হাসানাল বোলকিয়াকে তার ম্যাজেস্টি দুলি রাজা ইসতেরিকে সঙ্গে নিয়ে বাংলাদেশ সফরে আসার আমন্ত্রণ জানান।বাসস

পাঠকের মতামত:

এ পাতার আরও সংবাদ

উপরে